ব্রেকিং নিউজ

শাহজাদপুরে মায়ের হাতে মেয়ে খুন

মোঃ জহির রায়হান-সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে মাহিম নামের ৮ মাস ১৪ দিন বয়সী মেয়ে সন্তানকে নিজ হাতে গলাকেটে হত্যা করলো মুক্তা পারভীন (২৩) নামের এক পাষণ্ড মা। নিহত মাহিম পোরজনা ইউনিয়নের জোতপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মামুনের ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ৪ বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে পোরজনা ইউনিয়নের ছোট মহারাজপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর কন্যা (পালিত) মুক্তা পারভীনের সাথে ও একই ইউনিয়নের জামিরতা জোতপাড়া গ্রামের মোঃ মখদুম আলীর ছেলে আব্দূল্লাহ আল মামুন (২৭) সাথে বিয়ে হয়। পুত্র সন্তান মাহিন জন্মের ২ মাস পর পারিবারিক কলহের কারণে গতবছরের আগষ্ট মাসে দুজনের ডিভোর্স হয়। আবার দুই মাস পর তারা আবার বিয়ে করে একত্রে বসবাস শুরু করে।

নিহত শিশুটির চাচা মওলানা মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, গতকাল (২৮ এপ্রিল) মঙ্গলবার আমার ভাই আব্দূল্লাহ আল মামুন (২৭) স্ত্রী মুক্তা পারভীন ও একমাত্র পুত্রসন্তান মাহিন (৮মাস) কে রেখে রাত ৭টায় ধান কাটার জন্য রায়গঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। আমি নিজেও তারাবি পড়ানোর জন্য মসজিদে যাই, এসময় বাড়িতে কেউ না।

বাড়িতে কেউ না থাকায় রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টায় মুক্তা পারভীন ছেলে মাহিনের মুখে স্কচ টেপ পেচিয়ে চাকু দিয়ে নৃসংশভাবে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। রাত ৯টায় বাড়ির অন্যান্য সদস্যরা ফিরে এসে কাউকে না পেয়ে মুক্তার ঘরে গিয়ে মাহিনের গলাকাটা লাশ দেখতে পায়। এসময় পরিবারের সদস্যদের আর্তচিৎকারে এলাকার লোকজন ছুটে আসে।

শাহজাদপুর থানার উপপরিদর্শক শাহজাহান আলী জানান, শিশু হত্যার খবর পেয়ে রাতে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশু মাহিনের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করি। এসময় মাহিনে মা মুক্তা পরভীন নিখোজ ছিলো। রাত আনুমানিক ১টায় শিশুটির লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয় এবং মুক্তা পারভীন কে আটক করতে বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসানো হয়। ভোর নাগাদ একটি ধানক্ষেত থেকে মুক্তা খাতুনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুক্তা খাতুন তার সন্তান মাহিনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের কারণে সে নিজের ৯ মাসের সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে।