ব্রেকিং নিউজ

কিভাবে শুধুমাত্র পেস্ট দিয়ে কালো ঠোঁট গোলাপি করবেন।ঠোঁট গোলাপি করবে যা ১১০% শিওর

আজ আমরা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি।আজকের আমাদের প্রতিবেদন এর প্রতিপাদ্য বিষয়টি হচ্ছে কিভাবে আপনি আপনার ঠোঁটকে আরো সুন্দর এবং গোলাপী রংয়ের করে তুলতে পারবেন মাত্র 3 দিনে।

এখন শীতকাল আর শীতের সময় শরীরের প্রতি একটু বেশি যত্ন নেওয়া জরুরি কেননা এই শীতের সময় আমাদের শরীর অতিরিক্ত পরিমাণে রুক্ষ্ম এবং শুষ্ক হয়ে পড়ে। পাশাপাশি শরীর সহ বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কালো হয়ে যায়। তার মধ্যে রয়েছে আমাদের ঠোঁট। আর এই শীতের মরশুমে আমরা ঠোঁটকে ময়েশ্চারাইজ রাখতে বিভিন্ন ধরনের লিপ বাম ,জেল ব্যবহার করে থাকি।

যা আমাদের ঠোঁটের রুক্ষতা দূর করলেও আমাদের ঠোঁটকে কালচে করে দেয় যা দেখতে অনেকটা খারাপ লাগে। অনেক ছেলে রয়েছে যারা সিগারেট খাই না কিন্তু তা সত্বেও তাদের ঠোঁট কালচে হয়ে যায়।অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় ঠোঁট এর প্রতি যত্ন নিলেও কালচেভাব থেকে মুক্তি পেতে পারেন না অনেকে।

তাই আজ আমরা আজকের এই প্রতিবেদনটিতে আপনাদের জানাবো কিভাবে শুধুমাত্র পেস্ট ব্যবহার করে আপনি আপনার ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করে ঠোঁটকে গোলাপী করে তুলতে পারবেন। তাই আজ আমরা আজকের এই প্রতিবেদনটিতে আপনাদের জানাবো কিভাবে শুধুমাত্র পেস্ট ব্যবহার করে আপনি আপনার ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করে তুলতে পারবেন।

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে অবশ্যই পড়ুন আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত। আর এই পদ্ধতিটি 100 থেকে 110 শতাংশ কার্যকরী।আপনি এই পেস্ট ব্যবহার করে টানা তিনদিন প্রতিবেদনে যা যা আপনাদের জানাব সেভাবে ব্যবহার করবেন তাহলে দেখবেন নিশ্চিত আপনি উপকার পাবেন। তাহলে চলুন এবার বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক এ সম্পর্কে।

এজন্য আপনাদের প্রথমে প্রয়োজন হবে যে কোনো ধরনের সাদা পেস্ট।অবশ্য এক্ষেত্রে যে কোনো ধরনের কালার পেস্ট বর্জন করা বাঞ্ছনীয় কেননা কালার পেস্টের মধ্যে যে উপাদান গুলি থাকে সেগুলি আমাদের ত্বকের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। অন্যদিকে সাদা পেস্ট এর মধ্যে রয়েছে অনেক ধরনের উপকারী কিছু উপাদান যা আমাদের ত্বক এবং ঠোঁটের জন্য অনেক বেশি কার্যকরী।

এই সাদা পেস্টের মধ্যে রয়েছে ক্যালসিয়াম কার্বনেট যা আমাদের ঠোঁট কিংবা অনেক অন্যান্য অংশ গুলোকে ফর্সা এবং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এর জন্য আপনাদের সামান্য পরিমাণ পেস্ট নিতে হবে। পরিমাণ হিসাবে আপনি আঙুলের ডগায় সামান্য পরিমাণ পেস্ট লাগিয়ে নিন। এবার আপনি ব্রাশ করার পর এই পেস্টটি ঠোটের উপর ভালো করে লাগিয়ে নেবেন।

এবং আঙুলের সাহায্যে আপনার ঠোঁট থেকে ম্যাসেজ করতে থাকবেন। কিছুক্ষণ ম্যাসেজ করার পর এক থেকে দেড় মিনিট লাগিয়ে রেখে দেবেন। তখন দেখবেন আপনার ঠোঁটটা আগের থেকে অনেক বেশি ঠান্ডা অনুভূত হচ্ছে। এবং আপনাদের ঠোঁটে যে ডেট সেলগুলি রয়েছে সেগুলি আগের তুলনায় অনেক নরম হয়ে গেছে। এরপর একটি ব্রাশ নেবেন এক্ষেত্রে ব্রাশটি যেন নরম হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন ।

এবার এই ব্রাশ এর সাহায্যে ঠোঁট কে ভালোভাবে ম্যাসাজ করতে হবে।পেস্ট লাগানোর 1থেকে 2 মিনিট পর ব্রাশের সাহায্যে ভালো করে ম্যাসেজ করে নিতে হবে এভাবে ম্যাসেজ করলে আপনার ঠোঁটের ডেডসেল গুলি খুব সহজে উঠে যাবে এবং আপনার ঠোঁটের নতুন চামড়া গজাতে সাহায্য করবে।

আর এই পদ্ধতিতে আপনি যদি টানা তিন দিন ব্যাবহার করেন তাহলে অবশ্যই আপনি এর রেজাল্ট হাতেনাতে পেয়ে যাবে। এবং আপনাদের ঠোঁট কালচে ভাব দূর হয়ে বাচ্চার ঠোটের মত গোলাপী রঙের হয়ে উঠবে। পদ্ধতিটি ব্যবহার করলে অবশ্যই উপকৃত হবেন।