ব্রেকিং নিউজ

বাবা কেন ধর্ষক, বাবা কেন হত্যাকারী !


বাবা মানে জন্মদাতা তথা পিতা। আর পিতা শব্দটির মাঝে এমন একটি বিশালতা রয়েছে, যার কোন পরিধি নেই, মাপকাঠি নেই। শুধু সর্বজন স্বীকৃত বাবা নিঃস্বার্থ,পরোপকারী, স্বার্থ ত্যাগী মানুষ । কিন্তু সেই বাবা শব্দটি আজ কলঙ্কিত হচ্ছে কিছু সংখ্য মনুষ্যত্বহীন মানব নামে দানবের কারণে। কেননা তাদের পিপাসিত জাগতিক আত্মা, স্বত্বাকে ভুলে গিয়ে, ধ্বংশের ধারপ্রান্তে এসে দাড়িয়েছে।

তাই পৃথিবীর মনুষ্য সম্প্রদায়ের মধ্যে মানবতার বিশুদ্ধতা চর্চা করা অত্যন্ত জরুরী। সাম্প্রতিক যে সব অপ্রীতিকর ঘটানাবলী দেখা ও শুনা যায়। তাতে মনে হয় মানুষের মধ্যে ধর্মানুশাসনের অবক্ষয় চলছে। কেননা ধর্ম আমাদের নৈতিকতা শিক্ষায়। আর সমাজ আমাদের নৈতিকতাকে উৎসাহিত করে অনুপ্রাণিত করে। কিন্তু সেই সমাজেই যদি সভ্যতার নামে অসভ্যতা রীতিনীতি চালু হয়। তাহলে সামাজিকতা আর থাকে না। তাই সামাজিক পরিবেশ উন্নত করতে হলে। এর জন্য প্রয়োজন হচ্ছে নৈতিক শিক্ষা।

যে শিক্ষা ব্যবস্থার মধ্যে থাকবে মানবতাবোধ, সহনশীলতা, ধৈর্য, সহিষ্ণুতা, আত্মিক সম্পর্কের সম্প্রীতি। কিন্তু বর্তমান যে শিক্ষা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম এগিয়ে যাচ্ছে। তাতে মনে হয় শিক্ষার হার বাড়লেও মানুষের মধ্যে নৈতিকতার মূল্যবোধ বাড়ছে না। এই জন্য রাষ্ট্র ও সরকারকে উদ্যোগী হয়ে বাস্তবায়ন করতে হবে ধর্মীয় অনুসাশন। কারণ প্রতিটি ধর্মই মানব সম্প্রদায়ের কল্যাণ চায়, অকল্যাণ নয়। তাই ধর্মকে প্রাধান্য দিয়ে রাষ্ট্রীয় আইন শৃঙ্খলা ব্যবস্থা আরও উন্নত করা প্রয়োজন ও কাম্য। আমরা কুরআন সুন্নাহ হতে জেনেছি প্রতিটি মানুষের পিছে ছয়টি শত্রু রয়েছে যাকে বলে ষড় রিপু।

আর এই রিপু মানব জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ, এর নেতিবাচক ও ইতিবাচক(ভাল-মন্দ) উভয় দিকই রয়েছে। কেউ এই রিপুকে মহৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে হয়ে যাচ্ছে আল্লাহ্‌ ‘র অলি আবার কেউ এর বশীভূত হয়ে যাচ্ছে শয়তান। সাম্প্রতিক আমরা বিভিন্ন পত্রপত্রিকা, ইলেকট্রনিক মিডিয়া ও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হতে দেখেছি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার সেই ছোট্ট শিশু তুহিন হত্যার নেপথ্যের রহস্য। সামান্য জমিজমার লোভে প্রতিপক্ষকে প্রতিহত করার লক্ষ্যে নিজের ঔরসজাত ঘুমন্ত সন্তানকে ঘর হতে উঠিয়ে নিয়ে হত্যা করেছে পাষান্ড পিতা। সত্যি অবিশ্বাস্য, অকল্পনীয় বাস্তবতা।

যে বাবা ক্ষুধার্ত সন্তানের মুখে অন্ন তুলে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে,সেই বাবা কি করে হত্যা করে নিজের কলিজার টুকরা সন্তানকে। ভাবতে অবাক লাগে। হায়-রে বিস্ময়কর পৃথিবী। হায়-রে পৃথিবীর মানুষ। হায়-রে তোমাদের সভ্যতা আর মানবতা। একটু সম্পদের সঞ্চয়ী চিন্তায় স্বার্থান্বেষী হয়ে যাও নেশাগ্রস্ত মানুষের অভিপ্রায়।

জামালপুর জজ কোর্টের একটি মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলা মাদারগঞ্জ মডেল থানাধীন বাণিকুঞ্জ সাকিনাস্থ বাসিন্দা মনিরুজ্জামান উরুপে মন্টু ডাক্তার তার মেয়ে ৮ম শ্রেণীর পড়ুয়া মীম আক্তার(১৪) কে চরিতার্থ তথা ধর্ষণ করার চেষ্টা করে এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয় না বলার জন্য। এই যদি হয় বাবার প্রতি সন্তানের নির্ভরতা, আত্মপ্রত্যয়, শ্রদ্ধা। তাহলে সন্তানেরা কোথায় আশ্রিত হবে নির্ভয়ে। কার কাছে গিয়ে জানাবে মনের আকুতি, দুঃখ কষ্টের ব্যঞ্জনটুকু। বাবার এমন পশুত্ব আচরণ সত্যি লজ্জালু অকাম্য সন্তানের জন্য। তাই পৃথিবীর সন্তানেরা বাবা নামে মানুষটির কাছে পরিবর্তন চায় তাদের নৈতিকতার, মানবিকতা ও জাগতিক চিন্তার।

লেখকঃইসমাইল হোসেন,সংবাদকর্মী, সরিষাবাড়ী,জামালপুর।

Leave a Reply