ব্রেকিং নিউজ

দেহব্যবসার গল্প জানালেন এই পতিতা!

প্রতিটি পেশার নিজস্ব কিছু কর্ম গুণাগুণ আছে। তবে বিশ্বের এমন কিছু পেশাও রয়েছে, যা নিয়ে মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই। এমনই একটি পেশা হলো- দেহের ব্যবসা। এ পেশা নিয়ে প্রকাশ্যে অনেকেই হয়তো বিরক্তি প্রকাশ করে থাকেন, অনেকেই আবার এ সম্পর্কে জানতে প্রচণ্ড আগ্রহী।

যেমন- দেহব্যবসায়ীদের জীবন কেমন হয়? কোন কোন আজব অভিজ্ঞতার সাক্ষী হতে হয় তাদেরকে? এমন কিছু প্রশ্নই করা হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার এক দেহব্যবসায়ীকে। কারণ নিজের পেশাগত জীবনে ১২০০ এর বেশি পুরুষের সঙ্গে যৌ’ন স’ঙ্গমে লিপ্ত হয়েছেন তিনি।

ওই নারী প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পর থেকেই এই কাজ করছেন। নিজের এই পেশা জীবনে বহু রকমের আজব আজব সব অভিজ্ঞতার সাক্ষী হয়েছেন তিনি। এর মধ্যে এমন কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন তিনি, যা আজও তার মনে রয়ে গিয়েছে।

তিনি জানান, এক ব্যক্তি তাকে নিয়মিত টাকা দিতেন কেবল সঙ্গে হাঁটার জন্য ও একটি ঘোরানো সিঁড়ি বেয়ে নামার জন্য। এমন এক খদ্দের ছিলেন যিনি তাকে কেবল ন’গ্ন হয়ে বসে থাকার জন্য পারিশ্রমিক দিতেন। তারপর নিজেই হ’স্তমৈ’থুন করতেন।

ওই নারী আরো জানান, অনেকেই নিজের বিবাহিত জীবনে সুখ না পেয়ে তার কাছে আসতেন। কিন্তু এক ব্যক্তি এমন ছিলেন যিনি স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে বলতে স’ঙ্গমে লিপ্ত হতেন। আর ভাবতেন স্ত্রী কিছুই বুঝতে পারবে না। কিন্তু এমনটা যে নয় তা ওই ব্যক্তি ভবিষ্যতেই টের পেয়ে গিয়েছিলেন।

তিনি টাকার জন্য দেহব্যবসার পেশায় এসেছিলেন ঠিকই, তবে মানুষের শরীরের একটা নূন্যতম সুখের চাহিদা থাকে। সেটি এই নারীর ক্ষেত্রেও ছিল। মাঝে মধ্যে এমন খদ্দের আসত, যারা ভীষণ অপরিষ্কার। এদের মুখেও আবার বাজে দুর্গন্ধ থাকত। এই পেশায় নামার প্রথম দিকে এমন খদ্দের মেনে নিলেও পরে আর এমন মানুষদের সঙ্গে শারীরিক স’ঙ্গ’ম করতেন না ওই নারী।

Leave a Reply