ব্রেকিং নিউজ

সৌদিতে এবার ঘোড়দৌড়ে অংশ নিচ্ছেন এক নারী!

রক্ষণশীল সৌদি আরবে প্রকাশ্য রাস্তায় বের হতে হলে মেয়েদের কালো বোরখা পরা বাধ্যতামূলক। ধর্মীর প্রতীক হিসেবেই বিষয়টিকে দেখা হয়। তাই এ দেশটিতে নারীদের খোলামেলা পোশাক পরে চলাচল করা কঠিন। তারপরেও ক’জন সৌদি নারীর চলাচল ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এবার প্রথমবারের মতো সৌদি আরবের ঘোড়দৌড়ে অংশ নিতে চলেছেন একজন নারী জকি।

পরিবর্তনের হাওয়া বইতে থাকা দেশটিতে সেই জকি নিকোলা কারিকে স্বাদরে গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন একজন যুবরাজ।

সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে সৌদিতে নারীদের অধিকার ভয়ঙ্কর রকম ক্ষুণ্ণ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। খেলাধুলায় সু্যোগ করে দেয়ার কথা বলে বিশ্বের চোখে ধুলো দেয়া হচ্ছে বলেও প্রতিবেদনে জানায় মানবাধিকার সংস্থাটি।

যদিও যুবরাজ বানদার নামের সৌদি রাজপরিবারের এই সদস্য বলছেন তার উল্টোটা। ধনকুবের তেল ব্যবসায়ী যুবরাজ খালিদ আব্দুল্লাহর এ ভাতিজা বিবিসিকে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, তার দেশে পুরুষের সমান অধিকার পাচ্ছেন নারীরা! নতুন এক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দেশটি। তারই ধারায় বিশ্বের সবচেয়ে দামি ঘোড়দৌড়ে অংশ নিতে চলেছেন প্রথমবারের মতো কোন নারীও।

রাজ্য জুড়ে আমরা এক পরিবর্তন টের পাচ্ছি। আমরা এখনো শিখছি। কিন্তু একইসঙ্গে ভাবনার দুয়ারও খুলে দিচ্ছি। দেশে এখন সবাই যার যার রাজনৈতিক ভাবনা আদান-প্রদান করতে পারে।

সৌদির এমন ভাবনাকে স্বাগতম জানিয়েছেন নিকোলা ও তার ঘোড়ার প্রশিক্ষক জেমি ওসবর্ন, আমাদের মধ্যে যদি একজন সৌদিতে ঘোড়া চালায়, তবে সেটা হবে নিকোলা।

তেল সমৃদ্ধ সৌদিতে ঘোড়দৌড় ভীষণরকম জনপ্রিয়। এজন্য এই সার্কিটে প্রাইজমানিও অনেক বেশি। বাকি পাঁচ রেস সার্কিটে যখন সবমিলিয়ে প্রাইজমানি দেয়া হয় ৬.৮ মিলিয়ন ডলার, সেখানে এক সৌদি রেসেই পুরস্কার হিসেবে থাকছে মোট ২০ মিলিয়ন ডলার!

উল্লেখ্য, গত বছর মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদি নারীদের পোশাকের বিধিবিধান শিথিল করার ইঙ্গিত দেন। যুবরাজ নারী স্বাধীনতা নিয়ে নানা পদক্ষেপ নিলেও পোশাকের ওপর থাকা বিধিনিষেধের বিষয়টি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে তোলেননি।

Leave a Reply