ব্রেকিং নিউজ

সরিষাবাড়ীতে বকেয়া বেতন ও মিল খোলার দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

ইসমাইল হোসেন,সরিষাবাড়ী(জামালপুর) প্রতিনিধি ঃ আল্লাহতালার পবিত্র মহাগ্রন্থ আল কুরআন ও হাদিস থেকে আমরা জানতে পারি শ্রমিকের ন্যায্য মুজরি প্রদান সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) সুস্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছেন, শ্রমিকের গায়ের ঘাম শুকানোর আগেই তার মুজরি দিয়ে দাও। কিন্তু বাস্তবতায় আমরা কি দেখছি। গায়ের ঘাম শুকিয়ে লোনা হয়ে যাচ্ছে। তবুও পাচ্ছেনা শ্রমিক তার ন্যায্য মুজরি। ক্ষুধার্ত আর্তনাদে ক্রন্দন করছে কর্মহীন শ্রমিকেরা। তবুও মানবিক দৃষ্টিতে দেখছে না মালিক পক্ষ।

জানা গেছে, জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌর এলাকার প্রাণকেন্দ্রে ১৯৬৭ সালে এই মিলটি স্থাপিত হয়। সরিষাবাড়ীর বিভিন্ন কলকারখানা মধ্যে আলহাজ্ব জুট মিলস্ ছিল একটি সুনামধন্য প্রতিষ্ঠান। এখানে প্রায় ৪ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান ছিল এবং প্রতিদিন প্রায় ১৪ মে.টন জুট সামগ্রী প্রস্তুত হতো বলে জানা যায়। কিন্তু হঠাৎ করে মিলটি বন্ধ হয়ে যাওয়াতে বিপাকে পড়ে শ্রমিকেরা। শ্রমিক সংগঠন( সিবিএ) সূত্রে জানা যায়,২০১৮ সালে ২১ জুলাই মধ্যরাতের দিকে মিলটির মেইন গেট বিনা নোটিশে তালা লাগিয়ে দেয় মিল কর্তৃপক্ষ।

তারপর থেকেই শুরু হয় শ্রমিকদের কর্মহীন জীবনের সংগ্রাম। শ্রমিকেরা তাদের বকেয়া বেতন ভাতার দাবিতে শুরু করে বিক্ষোভ মিছিল। কিন্তু একের পর এক নানান কর্মসূচি দিয়েও মালিক পক্ষকে ভাগে আনতে পারেনি প্রশাসন,সিবিএ নেতৃবৃন্দ ও এলাকার রাজনৈতিক প্রতিনিধিরা। শুধু নানান অযুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে যায় বারবার স্বার্থান্বেষী এই মালিক পক্ষ। এদিকে সিবিএ ও পাট ব্যবসায়ীরা জানায়, শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন ভাতা সহ প্রায় ১৫ কোটি টাকা ঋৃণের বোঝা মাথায় নিয়ে পলাতক মিল কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু বিভিন্ন মাধ্যমে মালিকপক্ষকে বারবার তাগিদ দেয়ার শর্তেও তারা কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেনা। তাই শ্রমিক ইউনিয়নের (সিবিএ) নেতৃবৃন্দ সিদ্ধান্ত নেন রাজপথ ও রেলপথ অবরোধের করে রাখবেন। যার প্রেক্ষিতে গত ১৮ সেপ্টেম্বর সরিষাবাড়ির সকল শ্রমিক কর্মচারীদের ডাক দেন। সকাল ১১ টার সময় রেলওয়ে ময়দানে সমবেত হয়ে (সিবিএ) এর নির্দেশে খন্ড খন্ড ভাবে বিক্ষোভ মিছিলসহ শহরের মেইন সড়কটি প্রায় ২০টি স্থানে গাছের গুলাই ও টায়ার পুড়িয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে। এদিকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মোড়ে অবস্থানরত বিক্ষুব্ধ শ্রমিক কর্মচারীরা ভূঁয়াপুর হতে আসা চট্টগ্রামগামী ২৫৪ নং লোকাল ট্রেনটি অবরুদ্ধ করে।

ক্ষুধার যন্ত্রণার চেয়ে মরে যাওয়া অনেকগুণে শ্রেয় বলে সেচ্ছায় ট্রেনের সম্মুখে শুয়ে পড়ে অনেকেই। মরে যাবে তবুও দাবি আদায় না হলে ট্রেন যেতে দিবেনা বলে শ্ল। এদিকে উক্ত কর্মসূচিতে একাত্মতা ও অংশগ্রহণ করেন পপুলার ও এ.আর.জুট মিলের শ্রমিকগণ,তারাকান্দি সিবিএ নেতৃবৃন্দ, শ্রমিকলীগ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সরিষাবাড়ি অনার্স কলেজের ছাত্রসংসদসহ বিভিন্ন পেশাজীবীর মানুষেরা।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে আলহাজ্ব জুট মিলের (সিবিএ) এর সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জাহিদুর রহমান জাহিদ সিবিএ আলহাজ্ব জুট মিলস্,উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এম,এ মান্নান,টাউন বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম মুস্তফা জিন্নাহ, শ্রমিকলীগের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুৎ, ও পুপলার জুট মিলের সিবিএ’র সভাপতি আলফাজ উদ্দিন প্রমুখ। উক্ত মিলের সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান জাহিদ বলেন মিল কর্তৃপক্ষ বিনা নোটিশে মিলটি বন্ধ করে শ্রম আইন লঙ্ঘন করেছেন। তবুও আমরা চাই মিলটি খুলে দেয়া হোক।

না হলে শ্রমিক কর্মচারীর প্রায় ২ কোটি টাকা বেতন ভাতা বকেয়া আছে পরিশোধ করুন। এভাবে আর শ্রমিকদের কষ্ট দিবেন না। যদি দ্রুত বকেয়া পরিশোধ না করা হয় এবং মিল চালু না করা হয়। তাহলে আরও কঠিন কর্মসূচির হুশিয়ারীর ঘোষণা দেন এই শ্রমিকনেতা। এদিকে জেলা প্রশাসক এনামুল হক সিবিএ’র সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের কাছে মুঠোফোনে বলেন আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত রাখতে। তিনি মালিক পক্ষের সাথে এবিষয়ে কথা বলবেন বলে জানান।তাই কর্মসূচি ২৫ তারিখ পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করলেও ২৬ তারিখের প্রস্তুতি নিতে বলেন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। কারণ দাবি যদি না মানা হলে । তাহলে আবারও আন্দোলনে যাবেন বলে তারা জানান।

Leave a Reply