ব্রেকিং নিউজ

মধুপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল আজিজের দুটি কিডনিই অকেজো ‌‌প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি কামনা

মধুপুর প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের মধুপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ধনবাড়ী আসিয়া হাসান আলী মহিলা ডিগ্রি কলেজের ইতিহাসের সহকারি অধ্যাপক আব্দুল আজিজ একাধারে শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদ। এই আব্দুল আজিজ আজ মহা সংকটে পড়ে বাঁচার চেষ্টায় চোখে অন্ধকার দেখছেন।

একটার পর একটা সংকটে তিনি অসহায় হয়ে পড়েছেন। গত বছর করা ওপেন হার্ট সার্জারির মাধ্যমে চিকিৎসা নিয়ে বেঁচে আছেন তিনি। কয়েক মাস যেতে না যেতেই বড় মেয়ের কিডনি জটিলতায় ভারত গিয়ে কিডনি পাল্টিয়ে এনেছেন। দুইবারে মোটা অংকের টাকা খরচ হয়ে যাওয়ায় তিনি এখন নিঃস্ব অসহায় হয়ে পড়েছেন। আর এমন সময় তার দুটো কিডনিই অকেজো হয়ে পাড়য় ভয়ানকভাবে মুষড়ে পড়েছেন।

কলকাতার রবীন্দ্র ইন্টারন্যাশনাল হাসপাতালের কিডনি বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. দীপক শংকর রায় তাকে পরামর্শ দিয়েছেন দ্রæত কিডনি পাল্টানোর। দৈনিক জনকন্ঠের প্রতিষ্ঠাকাল থেকে মধুপুর প্রতিনিধি হিসেবে, ১৯৯৩-২০০০ সাল পর্যন্ত মধুপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এই আব্দুল আজিজ।

বর্তমানে দৈনিক ভোরের কাগজের মধুপুর প্রতিনিধি এবং মধুপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচিত সভাপতির দায়িত্বে আছেন। সাংবাদিক ও শিক্ষাবিদ আব্দুল আজিজ মধুপুরের প্রথম কিন্ডার গার্টেন মুকুল একাডেমির অধ্যক্ষের দায়িত্বে থেকে শিশু শিক্ষায় ব্যাপক অবদান রেখেছেন। বাবার নামে পশ্চাৎপদ এলাকায় শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়েও কুড়িয়েছেন সুনাম।

এই সমাজ হিতৈষী শিক্ষাবিদ জীবনের এমন সংকটাপন্ন অবস্থায় এসে পৌঁছেছেন। আর্থিক সংকটে পড়া স্বাধীনতার পক্ষের এ সাংবাদিক বাঁচার চেষ্টায় সমাজের সহৃদয় ব্যক্তিদের কাছে সহযোগিতা প্রত্যাশা করছেন। আওয়ামী রাজনীতির নিঃস্বার্থ সংগঠক উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল আজিজের সাথে বর্তমান কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য স্থানীয় এমপি ড. মো. আব্দুর রাজ্জাকের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে।

এমন সংকটে পড়ে অধ্যাপক আজিজ মানবতার মা খেতাব পাওয়া বিশ্ব শীর্ষ নারী নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য তনয়া আওয়ামীগের কান্ডারী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

সহযোগিতা পাঠানোর মাধ্যম- অগ্রণী ব্যাংক মধুপুর শাখা, টাঙ্গাইল- হিসাব নম্বর- ০২০০০০৪৮৩৬১৪৭। মুঠো ফোন-০১৭১২০২৯১৫৬

Leave a Reply