ব্রেকিং নিউজ
- ফাইল ফটো।

আফিফের ফিফটিতে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের শুভ সূচনা

আফিফ হোসেনের ফিফটিতে মিরপুরে জিম্বাবুয়েকে ৩ উইকেটে হারিয়ে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ। শুক্রবার শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ১৮ ওভারের খেলায় জিম্বাবুয়ের দেয়া ১৪৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৬০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো ধুকতে ‍থাকে স্বাগতিকরা। সেখান থেকে ম্যাচ সেরা আফিফের অনবদ্য ব্যাটিংয়ে ২ বল বাকি থাকতেই জয় পায় বাংলাদেশ।

পরাজয়ের চোখ রাঙানি থেকে কীভাবে দলকে টেনে তুলতে হয়, তাই যেন সবাইকে দেখালেন আফিফ হোসেন। ২৯ রান তুলতেই ৪ উইকেট নেই বাংলাদেশের। ব্যক্তিগত ১৯ রানে লিটন দাসের বিদায়ের পর সৌম্য সরকারও সাজঘরে ফেরেন বেখেয়ালি শটে। নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও সাবেক দলপতি মুশফিকুর রহিম। ৬০ রানের মধ্যে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাব্বির রহমান বিদায় নিলে হারের শঙ্কায় তখন টাইগার সমর্থকরা।

সেখান থেকেই পাল্টা আক্রমণে দলকে টেনে তোলেন দুই তরুণ ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মাত্র ২৪ বলেই ফিফটি তুলে নেন আফিফ। তাঁর ৫২ রানের সাথে মোসাদ্দেকের অপরাজিত ৩০ রানে ২ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটে ১৪৮ রান তোলে বাংলাদেশ।

এর আগে, ক্যারিয়ারের প্রথম বলেই ব্রেন্ডন টেলরের উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের শুরুটা ভালোই করেছিলেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৬৩ রানে ৫ উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়েকে চেপে ধরে স্বাগতিকরা। কিন্তু ষষ্ঠ উইকেটে রায়ান বুর্ল ও টিনোটেনডা মুতুমবোদজির জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় জিম্বাবুয়ে। ৮১ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তাঁরা। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১৪৪ রান করে জিম্বাবুয়ে। ৩২ বলে হার না মানা ৫৭ রানের এক অসাধারণ ইনিংস খেলেন বুর্ল। মুতুমবোদজি অপরাজিত থাকেন ২৭ রানে। ৪ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে কোন উইকেট পাননি সাকিব।

শনিবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামবে জিম্বাবুয়ে। আর রোববার আফগানদের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। দু’টি ম্যাচই মিরপুরে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শুরু হবে।

Leave a Reply