ব্রেকিং নিউজ

প্রতিবন্ধী কবিরাজ আবুল কালাম হত্যার রহস্য খোঁজে পেলো পুলিশ, গ্রেফতার ১

ইসমাইল হোসেন,সরিষাবাড়ী(জামালপুর) প্রতিনিধিঃ জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড়ের ঝিঙ্গারভিটা গ্রামের মৃত মাজম আলী চৌকিদারের ছেলে আবুল কালাম(৫০) এর হত্যার মূল রহস্য খোঁজে পেয়েছে পুলিশ। সরিষাবাড়ী থানা ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২ সেপ্টেম্বর রোজ সোমবার রাতে সাড়ে ৯ টার দিকে আবুল কালামকে যারা ফোন করে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে।

তারা একই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জব্বার (উরুপে) কালু মিয়ার ছেলে কামাল হোসেন(২১) এবং বন্ধু আব্দুল বলে জানা গেছে। গ্রেফতারকৃত কামাল হোসেনের জবানবন্দীতে জানা যায়, নিহত আবুল কালাম কবিরাজি করতো। তাই কামাল হোসেন তার পছন্দের মেয়েটিকে পটিয়ে দেয়ার জন্য তার কাছে সহযোগিতা চান। নিহত আবুল কালাম অর্থের বিনিময়ে তার কবিরাজি বিদ্যা দিয়ে মেয়েটিকে বশ করে এনে দেয় কামালের কাছে। কামাল হোসেন তার পছন্দের রশ্নিকে পেয়ে বিয়ে করে সংসার সাজায়।

এই ঘটনাটি প্রায় ৮/৯ মাস পূর্বের কথা।কিন্তু নিহত আবুল কালাম প্রতিবন্ধী কবিরাজ হলেও তার মনে ছিলো কামনাবাসনার লোভ, ছিলো যৌন পিপাসার তৃষ্ণা। তাই কামালের সুশ্রী রূপবতী স্ত্রীকে দেখে কামনার লোভ সামলাতে পারে না। কামালের স্ত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক সৃষ্টি করতে চায়। এবিষয়টি কামাল হোসেন বুঝতে পেরে নিহত কবিরাজ আবুল কালামকে নিষেধ করে।কিন্তু কবিরাজ সেটা মানে না বরং উল্টো তাকে হুমকি দেয় তার সংসার ভেঙ্গে দেয়ার। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়াবিবাদ চলে আসছিলো বলে জানান হত্যাকারী কামাল হোসেন। এদিকে কামাল হোসেন চিন্তা করে তার বন্ধু আব্দুলকে বলে। আব্দুল কিছুদিন পূর্বে এই কবিরাজের ঔষধ খেয়ে পাগলের মত ঘুরে বেড়ায়। আব্দুলের পরিবার বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা করে আব্দুলকে সুস্থ করে তুলে বলে জানা যায়। তাই কামাল হোসেন ও আব্দুল একত্রিত হয়ে দুষ্ট কবিরাজকে হত্যার পরিকল্পনা করে বলে জানান গ্রেফতারকৃত আসামী কামাল হোসেন।

কামাল হোসেন আরও বলেন ২সেপ্টেম্বর রাতে ভিকটিমকে ফোন দিয়ে ডেকে নিয়ে যায় ফাঁকা একটি বাড়ীতে। সেখানে তাকে প্রথমে লাঠি দিয়ে আঘাত করে এবং ইচ্ছেমত মেরে জখম করে। তারপর তাকে বাড়ীর পশ্চিমে পরিতক্ত ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে জবাই করে হত্যা করে বলে আসামীর জবানবন্দীতে উঠে আসে। উক্ত মামলার আইও, এস আই আরিফুল ইসলাম বলেন, এই হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী কামাল হোসেন সম্পর্কে আমরা ঐদিনই জানতে পারি এবং তার প্রতি দৃষ্টি রাখি। সমস্ত কিছু নিশ্চিত হয়েই পলাতক হত্যাকারীকে ঢাকা থেকে ধরে নিয়ে আসি। উক্ত মামলার আসামী গ্রেফতারকৃত বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ওসি সরিষাবাড়ী ফেসবুক পেইজে বলে জানা যায়।

Leave a Reply