ব্রেকিং নিউজ
- ফাইল ফটো।

কাদের বিরোধী দলের নেতা, রওশন উপনেতা

জনগণের কণ্ঠ ডেস্ক :

সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা নির্ধারণ করতে স্পিকারের কাছে চিঠি দিয়েছে জাতীয় পার্টি। চিঠিতে পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে বিরোধী দলীয় নেতা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় পার্টির ৬ সদস্যের সংসদীয় প্রতিনিধি দল স্পিকারের কার্যালয়ে চিঠি দেয়। তবে স্পিকার দেশের বাইরে থাকায় এ বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে বিরোধী দলীয় নেতার আসনটি শূন্য হয়। একাদশ সংসদ গঠিত হবার পর জিএম কাদেরকে বিরোধী দলীয় উপনেতা করা হয়েছিল। পরবর্তীতে তার পরিবর্তে রওশন এরশাদকে বিরোধী দলীয় উপনেতা করা হয়।

এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির রওশন গ্রুপ আর জিএম কাদের গ্রুপ দুই ভাগে ভাগ হয়ে বিরোধী দলীয় নেতা নির্ধারণে উঠেপড়ে লাগে। অবশেষে জিএম কাদেরকেই বিরোধী দলীয় নেতা করার প্রস্তাব করা হয়। একাদশ সংসদে জাতীয় পার্টির সংরক্ষিতসহ মোট ২৫ জন সংসদ সদস্য রয়েছেন। অন্যদিকে এরশাদের মৃত্যুতে একটি আসন শূন্য রয়েছে।

বিরোধী দলীয় নেতা নির্ধারণের চিঠিতে জাতীয় পার্টির ১৫ জন সংসদ সদস্যের স্বাক্ষর রয়েছে। অনেকটা গোপনীয়ভাবে এ চিঠি দেওয়া হয়। স্পিকারের দফতরে চিঠি দিতে যান দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, শামীম হায়দার পাটোয়ারী, আহসান আদেলুর রহমান, নাজমা আক্তারসহ ৬ সদস্যের প্রতিনিধিদল।

প্রতিনিধি দলে থাকা একাধিক সদস্য বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাম প্রকাশ না করার শর্তে।

অন্যদিকে রওশন এরশাদও বিরোধীদল নেতা হতে চান এমন কথা চাউড় রয়েছে। এখন রওশন কি প্রতিক্রিয়া দেখান সেটাই বড় প্রশ্ন। দশম সংসদে রওশন ছিলেন বিরোধী দলীয় নেতা। একাদশ সংসদে প্রথমে এরশাদ বিরোধী দলীয় নেতা এবং জি এম কাদেরকে উপনেতা করা হয়।

মঙ্গলবার (০৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে জি এম কাদের বলেছিলেন, বিরোধী দলীয় নেতার বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। ৮ তারিখের আগে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Leave a Reply