ব্রেকিং নিউজ

কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল

লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়ার আগে একটি গোল করিয়ে আর আরেকটি করে দলকে এগিয়ে রেখেছিলেন গাব্রিয়েল জেসুস। শেষ দিকে পেনাল্টি থেকে রিশার্লিশনের গোলে ব্রাজিল পেল দারুণ এক জয়। পেরুকে হারিয়ে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছে স্বাগতিকরা। রিও দে জেনেইরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ফাইনালে ৩-১ গোলে জিতেছে তিতের শিষ্যরা। ২০০৭ সালের পর আবার প্রতিযোগিতাটির শিরোপা জিতল পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। দক্ষিণ আমেরিকার শীর্ষ ফুটবল প্রতিযোগিতায় ব্রাজিলের এটি নবম শিরোপা।

পঞ্চদশ মিনিটে প্রথম সুযোগেই এগিয়ে যায় ব্রাজিল। পায়ের কারিকুরিতে দুই জনকে ফাঁকি দিয়ে ডান দিক থেকে গাব্রিয়েল জেসুস ক্রস বাড়ান ডি-বক্সে। অরক্ষিত অবস্থায় থাকা এভেরতন বল পাঠিয়ে দেন জালে। এই টুর্নামেন্ট দিয়েই পাদপ্রদীপের আলোয় উঠে আসা গ্রেমিওর এই ফরোয়ার্ডের এটা তৃতীয় গোল।
এরপর ভালো দুটি সুযোগ নষ্ট হয় স্বাগতিকদের। ২৪তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে রবের্তো ফিরমিনোর পাসে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন ফিলিপে কৌতিনিয়ো। ১২ মিনিট পর কাছ থেকে লিভারপুল ফরোয়ার্ড ফিরমিনোর হেড ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়।

৪৪তম মিনিটে পাওলো গেররেরোর স্পট কিকে সমতায় ফেরে পেরু। ডি-বক্সে বল চিয়াগো সিলভার হাতে লাগলে সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। পরে ভিএআর প্রযুক্তিতে যাচাই করেও সিদ্ধান্ত অপরিবর্তিত রাখেন তিনি। আসরে স্বাগতিকদের জালে এটাই প্রথম গোল।

পেরুর সমতায় ফেরার স্বস্তি অবশ্য বেশিক্ষণ থাকেনি। বিরতির ঠিক আগে যোগ করা সময়ে আর্থারের পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে নিচু কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন জেসুস।আসরে ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ডের এটি দ্বিতীয় গোল। সেমি-ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ২-০ গোলের জয়ে দলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১০ মিনিটে দুটি সুযোগ পেয়েছিলেন ফিরমিনো। ডি-বক্সের ভেতরে বল পেয়ে কোনাকুনি শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি। একটু পর বাঁ দিক থেকে ক্রসে তার হেড পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।

৭০তম মিনিটে বড় ধাক্কা খায় ব্রাজিল। প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডার কার্লোস সামব্রানোকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন জেসুস।

প্রতিপক্ষে এক জন কম থাকার সুযোগ অবশ্য কাজে লাগাতে পারেনি গত দুবারের চ্যাম্পিয়ন চিলিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠা পেরু। উল্টো নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে তারা হজম করে তৃতীয় গোল।

ডিফেন্ডার সামব্রানো ডি-বক্সে এভেরতনকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলে পেনাল্টি দেন রেফারি। ভিএআর প্রযুক্তিতে যাচাই করেও সিদ্ধান্ত অপরিবর্তিত রাখেন তিনি। ফিরমিনোর বদলি নামা রিশার্লিসন স্পট কিকে স্কোরলাইন ৩-১ করেন।এর আগে সবশেষ ২০১৩ সালে কোনো শিরোপা জিতেছিল ব্রাজিল। ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের ফাইনালে এই মাঠেই স্পেনকে হারিয়েছিল ৩-০ গোলে।-বিডিনিউজ২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*