ব্রেকিং নিউজ

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোন স্কোরই নিরাপদ নয়

এ বছরটিতে ওয়ানডে ক্রিকেটে যেনো হাওয়ায় উড়ছে ইংল্যান্ড ! প্রথমে ব্যাট করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪১৮/৬, পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৭৩/৩, শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩৬৪/৪ স্কোরকে জয়ে পরিনত করেছে ইংল্যান্ড।

এ বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোন স্কোরই হচ্ছে না নিরাপদ। ব্রিজটাউনে ৩৬৪/৪ চেজ করে জিতেছে তারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্রিস্টলে ৩৫৯ এবং নটিংহামে ৩৪১ চেজ করেও জিতলো তারা ! ব্রিস্টলে জয়টি পেয়েছে তারা ৩১ বল হাতে রেখে। সেখানে নটিংহামে জিততে ঘাম ঝরিয়ে ছেড়েছে পাকিস্তান। ৩৪১ চেজ করে জিতেছে তারা শুক্রবার রাতে ৩ উইকেট হাতে রেখে। এই জয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের ট্রফিটা ঘরে থাকলো ইংল্যান্ডের। ৪র্থ ম্যাচ শেষে ৩-০তে এগিয়ে ইংল্যান্ড। লিডসে শেষ ওয়ানডে ম্যাচটি শুধুই মর্যাদা রক্ষার ম্যাচে পেলো রূপ।

এই সিরিজে পাকিস্তান প্রতিটি ম্যাচেই দারুন ব্যাটিং করেছে। প্রথমে ব্যাট করে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে ৩৫৮/৯ স্কোর করেছে, শুক্রবার সেখানে স্কোর পকিস্তানের ৩৪০/৭। বাবর আজমের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৯ম সেঞ্চুরি ( ১১২ বলে ১৩ চার, ১ ছক্কায় ১১৫), ফখর জামান ( ৫৭) এবং হাফিজের (৫৯) ফিফটিতে ভর করে পাকিস্তানের স্কোরটা কিন্তু কম নয়। প্রথম উইকেট জুটির ১১৬, দ্বিতীয় জুটির ১০৪ রানে রান পাহাড়েই চাপা দিয়েছে পাকিস্তান। তবে জেসন রয় ( ৮৯ বলে ১১ চার,৪ ছক্কায় ১১৪) এর ৭ম ওয়ানডে সেঞ্চুরি এবং স্টোকসের হার না মানা হাফ সেঞ্চুরিতে ( ৭১ নট আউট) ভর করে ৩ বল হাতে রেখে জিতেছে ইংল্যান্ড ৩ উইকেটে।

তা সম্ভব হয়েছে প্রথম জুটির ৯৪,দ্বিতীয় জুটির ১০৭ এবং ৭ম জুটির ৬১ রানে। শুরু থেকেই দু’দলের রানের চিত্রটা ছিল হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস। পাওয়ার প্লে তে পাকিস্তানের ৬৩/০ স্কোরের বিপরীতে ইংল্যান্ডের স্কোর ৬৮/০। তবে শেষ ১২ বলে ১৯ রানের টার্গেটের মুখে ইংল্যান্ডকে ফেলে দিয়েও ইংল্যান্ডকে ভয় ধরিয়ে দিতে পারেনি পাকিস্তান। উল্টো ৪৯তম ওভারে জুনায়েদের ১৬ রান খরচায় শেষ ওভারে জয়ের জন্য মাত্র ৩ রানের টার্গেট পায় ইংল্যান্ড।

Leave a Reply