ব্রেকিং নিউজ

গ্রাম্য সালিশে বাবাকে দিয়ে জুতাপেটায় স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

নিউজ ডেস্ক: গ্রাম্য সালিশে বাবাকে দিয়ে জুতাপেটায় স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা গ্রাম্য সালিশে বাবাকে দিয়ে জুতাপেটা করায় লজ্জায় এক স্কুলছাত্র গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

বুধবার দুপুরে বাড়ি থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সরমংলা খাড়ির পাশের একটি গাছে তার লাশ ঝুলতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। মৃত স্কুলছাত্রের নাম জসিম উদ্দিন (১৫)। সে উপজেলার সাহাব্দিপুর গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে। জসিম পিরিজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পিরিজপুর এলাকার এক স্কুলছাত্রীর সঙ্গে জসিমের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে পিরিজপুর এলাকার মাঠে তারা দুজন দেখা করে।

এ সময় স্থানীয়রা তাদের একটি বাড়িতে আটকে রাখে। এ নিয়ে রাতেই গ্রাম্য সালিশ বসানো হয়। সেখানে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য রফিকুল ইসলাম জসিমের বাবাকে দিয়ে তাকে জুতাপেটা করান। এরপর আর রাতে বাড়ি ফেরেনি জসিম। ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে সালিশ বৈঠক করার কথা স্বীকার করেন। এছাড়াও জসিমকে জুতাপেটা করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

গোদাগাড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, গত রাতে একটি সালিশ বৈঠকে জসিমকে জুতাপেটা করা হয়। এর পর সে বাড়ি ফিরেনি। ধারণা করা হচ্ছে, লজ্জায় সে আত্মহত্যা করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*