ব্রেকিং নিউজ

অধ্যাপক ডাঃ হাবীবে মিল্লাত মুন্নার উন্নয়নের কথা সিরাজগঞ্জবাসীর মুখে মুখে


মোঃ জহির রায়হান- সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি,জনগণের কণ্ঠ ঃ

সারাদেশের মত সিরাজগঞ্জ শহর ও কামারখন্দের হাটে ঘাটে চায়ের দোকানে চলছে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা। সকালে শহরের বিয়ারা ঘাট এলাকার চায়ের দোকানে একজন বৃদ্ধ বলছেন ” সিরাজগঞ্জ সদরে জন্ম গ্রহন করা অধ্যাপক ডাঃ হাবীবে মিল্লাত মুন্না সবচেয়ে বড় কাজ করেছে যমুনা নদীতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং করে।

ঠিক এই সময় আরেকজন যুবক যোগ করে বললেন, ক্রসবাধ নির্মান করে কয়েক হাজার একর আবাদী জমি পুনরুদ্ধার হয়েছে। তখন একজন স্কুল শিক্ষক বলে উঠলেন, মেরিন একাডেমী প্রতিষ্ঠার কথা “। দুপুরে কথা হয় আনোয়ার নামে মাষ্টার্সে পড়ুয়া এক ছাত্রের সাথে, তার বাড়ি সয়দাবাদ ইউনিয়নে। সে বলল” ইকোনমিক জোন ও বিসিক শিল্প পার্ক এখন বাস্তবায়নের পথে। এই দুটি প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে কয়েকলক্ষ বেকার যুবকের কর্মসংস্থান হবে পাশাপাশি আর্থ সামাজিক ও অবকাঠামোগত ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হবে। আর এই দুটি প্রকল্প

এমপি মুন্নার দুরদর্শীতা ও পরিশ্রমের ফসল”।
মুলিবাড়ি এলাকার চেইন মাষ্টার আমিরুল বলেন, ” মুন্না ভাইয়ের কারনেই আজ মুলিবাড়ি থেকে নলকা পর্যন্ত চারলেনের কাজ শেষের পথে”।
কামারখন্দের জামতৈল এলাকার জনৈক কৃষক জানান,” আমাগোরে কামারখন্দের মানুষের কপাল ভালো যে মুন্না ভাইয়ের মত এমপি পাইছিলাম। আগের কোন এমপিই কামারখন্দ নিয়া এত ভাবেও নাই, আসেও নাই কাজও করে নাই।

কামারখন্দ এখন শতভাগ বিদ্যুতায়িত। ফায়ার সার্ভিস ষ্টেষন হইছে, হাজী কোরপ আলী কলেজ জাতীয় করন হইছে, প্রায় সকল রাস্তা পাকা হইছে। ব্যাবাক স্কুলে নতুন নতুন বিল্ডিং হইছে আর সবচেয়ে বড় কথা আমরা যে কোন সময় যে কোন প্রয়োজনে তার নিকট যাইবার পারি। ও আরেক খান কথা শ্মশান ঘাট নির্মান হইছে, হাসপাতালে আসন বৃদ্ধি ও আধুনিকায়ন হইছে”।

শিয়ালকোল এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী চা খেতে খেতে আরেক বন্ধুকে বলছে,” শহীদ এম ক্যাপ্টেন মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজ আর সদর হাসপাতালে আধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপন ও আসন সংখ্যা বৃদ্ধি একমাত্র মুন্না এমপির একাগ্রতায় হয়েছে”। ধানবান্ধি এলাকার রিপন বলেন ” শেখ রাসেল শিশু পার্ক স্থাপন, পদ্মপুকুর নির্মান করে মুন্না ভাই সিরাজগঞ্জের লোকজনের বিনোদনের ব্যবস্থা করেছেন”।

গোশালা এলাকার বশির জানান, ” সঠিক ভাবে কাটাখালী খাল পুনর্খনন করে যদি সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা যায় তবে এটি হবে ঢাকার হাতিরঝিলের মত সুন্দর জায়গা, মুন্না ভাইয়ের একান্ত ইচ্ছা ও পরিশ্রমের কারনেই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে”।

Leave a Reply