ব্রেকিং নিউজ

টেস্ট র্যাংকিংয়ে ৮ এ উঠার সুযোগ টাইগারদের সামনে

বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে আকরাম খানের অবদান কম নয়। ২০০০ সালের ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ম্যাচে হোক বা ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে স্মরণীয় জয়েই হোক। আকরাম খানের নাম জড়িয়ে আছে।

০১ নভেম্বর, সেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের ‘রিয়েল হিরোর’ জন্মদিন। বাংলাদেশের প্রথম টেস্টে থাকলেও খেলতে পেরেছিলেন সর্বসাকুল্যে ৮টি টেস্ট। এই ৮ ম্যাচে রান করেন মাত্র ২৫৯। রঙিন পোশাকে খেলেন ৪৪টি ম্যাচ যেখানে তার নামের পাশে আছে ৯৭৬ রান। যার মধ্যে ৫টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে।

১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে আকরাম খানের হাতে ওঠে বাংলয়াদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব। ১৯৯৪ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত চারদেশীয় ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় তার অধিনায়কত্বে ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ। ম্যাচে সাহসিকতাপূর্ন ব্যাটিং করে ৬৬ রান করেন। যদিও সে ম্যাচে ৫২ রানে বাংলাদেশ দল ভারতের কাছে পরাজিত হয়।

তার অধিনাকয়ত্বে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ন জয়টি আসে ১৯৯৭ সালে। মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত আইসিসি ট্রফি চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। যার মাধ্যমে বাংলাদেশ দল বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।

২০০৩ সালে মাঠের ক্রিকেট ছাড়লেও ক্রিকেট থেকে দূরে যাননি। ১৯৯০ সালে বাংলাদেশ ক্রিকেটে আসা প্রথম এই প্রকৃত নায়ক যুক্ত হয়ে পড়েন বাংলাদেশ ক্রিকেটের ব্যবস্থাপনার সঙ্গে। নির্বাচক কমিটির সদস্য থাকা আকরাম বর্তমানে কর্মরত আছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট অপারেশনস প্রধান হিসেবে।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্তক সংস্থা আইসিসি। লিখেছে, ‘শুভ জন্মদিন আকরাম খান। আইসিসি বিশ্বকাপ ১৯৯৯ এর বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ে সর্বোচ্চ রান আসে বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়কের কাছ থেকে। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশের অভিষেক টেস্ট খেলেন। খান বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রকৃত নায়ক।’

Leave a Reply